Facebook SDK

 

Protect your eye from Monitor  

আসসলামু অলাইকুম, আপনার মূল্যবান দু’টি চোখকে সুরক্ষিত রাখুন কম্পিউটারের মনিটরের আলোর উজ্জ্বলতার তীব্রতার ক্ষতিকর প্রভাব থেকে। হ্যাঁ, কম্পিউটারের ডিসপ্লের এই আলো অনেক সময় চোখের মারাত্মক ক্ষতিসাধন করতে পারে। তবে তা ধীরে ধীরে সংঘটিত হয়, তাই আমরা সহজে বুঝতে পারিনা।

কম্পিউটার আজ আমাদের নিত্যদিনের সঙ্গী । কম্পিউটার ব্যতীত আজকের দিনে এমন কোন প্রতিষ্ঠান খুঁজে পাওয়া যাবেনা। চাকুরীর স্বার্থে অফিসে কম্পিউটার অপারেটরদের ঘন্টার পর ঘন্টা কম্পিউটারের সামনে বসে থাকতে হয়। আর আইটি ডিপার্টমেন্টের লোক হলে তো কোন কথাই নেই। শিক্ষার্থী কিংবা ডেভেলপারদের পড়াশোনার ক্ষেত্রেই হোক অথবা সফটওয়্যার ডেভেলপমেন্টের জন্য, কম্পিউটারের স্ক্রিনের সামনে বসে থাকা যেন বাধ্যতামূলক। কিন্তু ঘণ্টার পর ঘণ্টা মনিটরের স্ক্রিনের সামনে খালি চোখে বসে থেকে কাজ করা চোখের জন্য ক্ষতিকর। তাই সময় থাকতেই আপনার চোখকে সুরক্ষিত রাখুন।

আসুন প্রথমেই জেনে নেই চোখের উপর কম্পিউটারের মনিটরের আলোর নেতিবাচক প্রভাব সম্পর্কে…


ফেসবুক লাইভ কিভাবে করে? ফেসবুক লাইভ সম্পর্কিত পূর্ণাজ্ঞ গাইডলাইন.alert-success 

ক্ষতিকর দিকঃ

অনেক পেডিয়াট্রিক চক্ষু বিশেষজ্ঞ বিশ্বাস করেন যে, শিশুদের মধ্যে কম্পিউটারের বহুল ব্যবহার দৃষ্টিক্ষীণতা ঝুঁকির দিকে নিয়ে যেতে পারে। সাম্প্রতিক সময়ের গবেষণাতেও সেই একই দিকে ইঙ্গিত বহন করে। তবে ঝুঁকিতে যে কেবল শিশুরাই আছে তা কিন্তু নয়, সব বয়সের মানুষের জন্যও এর ক্ষতিকর প্রভাব বিদ্যমান। সবচেয়ে কমন যে সমস্যাটি হতে পারে তা হল কম্পিউটার ভিশন সিনড্রোম(CVS)। এর প্রধান প্রধান লক্ষণগুলো হলঃ ঘাড় ব্যাথা, ঝাপসা দৃষ্টি, চোখে লালভাব, চোখ-টনটনানি, শুকনো চোখ(চোখের শুষ্কতা), যুগল দৃষ্টি, চোখের লেন্সে সমস্যা।
এছাড়াও কম্পিউটারের মনিটরের সামনে বেশীক্ষণ ধরে বসে থেকে কাজ করলে চোখজনিত যে ধরণের সমস্যা হতে পারে তা হলঃ

  • অনেকক্ষণ তাকিয়ে থেকে টানা কাজ করতে থাকলে চোখে ঝাপসা দেখা শুরু হতে পারে।
  • চোখ/মাথা ব্যাথা হতে পারে।
  • দীর্ঘদিন এভাবে কাজ করতে থাকলে চোখের পাওয়ারের সমস্যা হতে পারে।
  • গ্লকৌমা ঝুঁকি বেড়ে যেতে পারে।
  • একটানা  কম্পিউটার ব্যবহারের ফলে চোখের পর্দায় ময়লা জমে যেতে পারে যার সর্বশেষ ক্ষতিকর পরিণতি হতে পারে অন্ধত্ব।

চোখকে সুরক্ষিত রাখুন কয়েকটি কার্যকরী পদ্ধতি গ্রহণের মাধ্যমেঃ

কাজের প্রয়োজনে কিংবা অধ্যয়নের ক্ষেত্রে অথবা বিনোদের জন্য বা অবসর সময় কাটানোর নিমিত্তে আমরা একটানা ঘণ্টার পর ঘণ্টা আমাদের ডেস্কটপ/ল্যাপটপের সামনে বসে থাকি। এভাবে কম্পিউটারের সামনে বসে থাকলে চোখে নানাবিধ সমস্যা হয়ে থাকে যা পূর্বে আলোচনা করা হয়েছে। হয়ত এক সময় আপনার ভাল চোখে চশমা ব্যবহার করা লাগতে পারে চোখের পাওয়ারের ত্রুটি হওয়ার ফলে। কিন্তু কাজ তো আমাদের করতেই হবে, তবে শরীরের মহা-মূল্যবান সম্পদ চোখকে যথাসম্ভব বিপদমুক্ত রেখে। আপনার কম্পিউটারের মনিটরের উজ্জ্বল আলোর ক্ষতিকর প্রভাব থেকে চোখকে সুরক্ষিত রাখুন নিচের পদ্ধতিগুলো অবলম্বনের মাধ্যমে।

  • কম্পিউটারের মনিটরের ডিসপ্লে/স্ক্রিন ব্রাইটনেস আপনার প্রয়োজনমত কমিয়ে রাখুন।
  • ডিসপ্লের স্ক্রিন রেজুলিউশন কমিয়ে চোখকে রক্ষা করতে পারেন।
  • স্ক্রিন প্রটেক্টর ব্যবহার করুন।
  • প্রয়োজনে পাওয়ারবিহীন চশমা ব্যবহার করতে পারেন।
  • মনিটরের উজ্জ্বল আলো থেকে রক্ষা পেতে ব্যবহার করতে পারেন “computer eyeglasses”। এটি এক প্রকার চশমা যার লেন্সগুলো মনিটরের উজ্জ্বলতা থেকে চোখকে সুরক্ষিত রাখার জন্য বিশেষভাবে তৈরি।
  • অন্ধকারে কম্পিউটারের মনিটরের সামনে বসা থেকে বিরত থাকুন।
  • কাজের ফাঁকে বিরতি নিন। মাঝে-মাঝে চোখের ব্যায়াম করুন।
  • সফটওয়্যারের সাহায্য নিন(যেমনঃ f.lux)।

f.lux-এর ব্যবহারঃ

f.lux এমন একটি সফটওয়্যার যা  কম্পিউটারের মনিটরের আলো নিয়ন্ত্রণ করে আপনার চোখকে সুরক্ষিত রাখতে সহায়তা করে। এটি Microsoft Windows, OS X এবং Linux এমনকি  iOS-এর জন্যও ব্যবহার উপযোগী। সফটওয়্যারটি আপনার কম্পিউটারের ভৌগলিক অবস্থান ও ঘড়ির সময় অনুযায়ী মনিটরের ব্রাইটনেস ও আলোর রঙ নিজ থেকেই বদলে দেবে। এজন্য আপনার ব্যবহৃত কম্পিউটারের অবস্থান কোথায় সেটি ইন্সটলের পর ব্যবহারের পূর্বে সেট করে দিতে হবে।
সফটওয়্যারটির বর্তমান সর্বশেষ সংস্করন হচ্ছে v3.10, ফ্রি ডাউনলোড লিঙ্ক এখানে

সফটওয়্যারটি ইন্সটল করার পর ওপেন করে Settings-এ ক্লিক করুন। তারপর নতুন উইন্ডো আসলে ক্লিক করুন Change

দেখতে সমস্যা হলে ছবিতে ক্লিক করুন।

অতঃপর আরেকটি  উইন্ডো আসবে যেখানে আপনার অবস্থান উল্লেখ করতে হবে। টাইপবক্সে টাইপ করুন আপনার বর্তমান লোকেশন অথবা জিপকোড। এবার Search বাটনটিতে ক্লিক করুন অতঃপর আপনার অবস্থান নির্ধারণের পর ক্লিক করুন OK। এবার স্বয়ংক্রিয়ভাবে মনিটরের স্ক্রীনের উজ্জ্বলতার পার্থক্যতেই বুঝতে পারবেন কাজ সম্পন্ন হয়েছে।



f.lux-এর কার্যকারিতা বন্ধ করতে চাইলে

Flux-এর আইকনে ক্লিক করে Disable for one hour(for doing color-sensitive work) ক্লিক করুন। অথবা উপরে ডান দিকে Settings-এর পাশে অপশনে ক্লিক করে সেখান থেকে Exit f.lux(v3.10) সিলেক্ট করুন। এবার আপনার কম্পিউটারের মনিটরের স্ক্রীনের আলোর পার্থক্য দেখেই বুঝতে পারবেন যে উজ্জ্বলতা পূর্বের অবস্থায় আবার ফিরে এসেছে।


বিঃদ্রঃ নতুন কোন সফটওয়্যার ইন্সটল করার সময় এটি কাজ করা বন্ধ করে দিতে পারে। তাই ঐ সফটওয়্যার ইন্সটল করার পর পুনরায় Flux-এর আইকনে ক্লিক করলে সফটওয়্যারটি আবার চালু হবে।


কিভাবে ফেসবুক প্রফাইল ফ্রেম তৈরী করে Try it অপশন যোগ করবেন।alert-success 


Post a Comment

Previous Post Next Post