Facebook SDK

 যুগ এখন স্মার্টফোনের। কিন্তু অনেকেই এখনো ফোনকল বা বার্তা আদান-প্রদানে ফিচার ফোনের ওপরেই নির্ভর করেন। এমনই একটি ফিচার ফোনকে বিলাসবহুল প্রযুক্তিপণ্য হিসেবে তৈরি করেছে ভার্চুর সাবেক কর্মীরা।


যোগাযোগে ‘মস্তিষ্ক তরঙ্গ’ ব্যবহারে আগ্রহী মার্কিন সেনা [News]alert-success


যুক্তরাজ্যের বিলাসবহুল ফোনের নির্মাতা হিসেবে ভার্চু বিশ্বব্যাপী পরিচিত। প্রতিষ্ঠানটি এর আগে প্রায় তিন কোটি টাকা দামের ফিচার ফোনও তৈরি করেছে। প্রতিষ্ঠানটির সাবেক কর্মীরা সিলে ‘এক্সওআর’ নামের একটি মোবাইল ফোন ব্র্যান্ড তৈরি করেছেন। এক্সওআর ব্র্যান্ডের অধীনে প্রায় সাড়ে তিন লাখ টাকা (৩ হাজার ৯৭৩ মার্কিন ডলার) দামের ফোন তৈরি হচ্ছে। আগামী বছরের প্রথম প্রান্তিক অর্থাৎ জানুয়ারি থেকে মার্চের মধ্যে এই ফোন বাজারে আসতে পারে।


প্রযুক্তি বিষয়ক ওয়েবসাইট এনগ্যাজেটের তথ্য অনুযায়ী, ‘এক্সওআর’ ব্র্যান্ডের নতুন স্মার্টফোনটির নাম হতে পারে ‘এক্সওআর টাইটানিয়াম’। এটি যুক্তরাজ্যে হাতে তৈরি বিশেষ মডেলের ফোন হবে। কিন্তু দাম বেশি হলেও এতে শুধু ফোনকল ও বার্তা আদান-প্রদান করার সুবিধা থাকবে। এত দামি ফোনে কী থাকবে তা-ই ভাবছেন? এনগ্যাজেটের তথ্য অনুযায়ী, টাইটেনিয়াম কেসিংয়ে টি৯ কিবোর্ড বসানো থাকবে ফোনটিতে। এর পেছনে থাকবে চামড়ার ক‍ভার। এটি বিশেষভাবে নকশা করা লিনাক্সনির্ভর সফটওয়্যারে চলবে। এর ব্যাটারি একবার চার্জে টানা ৫ দিন চলবে। এ ছাড়া নয়েজ ক্যানসেলেশন ও তারহীন চার্জিং সুবিধাও পাওয়া যাবে।

[ Hot news]ফিচার ফোনের দাম প্রায় সাড়ে তিন লাখ টাকা! -প্রথম আলো

ফোনটির বিশেষ বৈশিষ্ট্য হচ্ছে, এর হার্ডওয়্যারে এইএস ২৫৬ এনক্রিপশন থাকবে। অর্থাৎ, যাঁরা প্রাইভেসি নিয়ে বেশি চিন্তা করেন, তাঁদের বিশেষ সুরক্ষা দেবে ফোনটি। এর বাইরে ফোনটিতে এমন বিশেষ নিরাপত্তা ফিচার থাকছে, যাতে ফোনটি হারিয়ে গেলেও দূরে থেকে সব তথ্য মুছে ফেলা যাবে।


ভুয়া ফ্যানপেজ নিয়ে বিব্রত সাবিলা [ Tech News]alert-success

যুক্তরাজ্যের বিলাসবহুল ফোন নির্মাতা হিসেবে ভার্চু ১৯৯৮ সালে যাত্রা শুরু করে। এ ব্র্যান্ডটি প্রতিষ্ঠার পেছনে ছিল নকিয়া। গ্রাহকদের মধ্যে দামি ফোনের প্রতি আগ্রহ কমে যাওয়ায় প্রতিষ্ঠানটি বন্ধ হয়ে গেছে। অ্যান্ড্রয়েড ও আইওএস ইকোসিস্টেমের কারণে এখন স্মার্টফোনে অভ্যস্ত হয়ে যাওয়ায় ফিচার ফোনে আগ্রহ হারিয়েছে মানুষ।

এর আগে ভার্চু সিগনেচার কোবরা নামে বিশেষ ফোন বাজারে ছাড়ে। লিমিটেড এডিশনের সেই ফোনের দাম ছিল ৩ লাখ ৬০ হাজার ডলার বা বাংলাদেশি টাকায় প্রায় ২ কোটি ৯০ লাখ টাকা।

ফোনটির কোনা বেয়ে সাপের মতো আকার দেওয়া হয়। এতে বসানো হয় ৪৩৯টি রুবি আর ‘সাপের’ দুই চোখ এমারল্ডস দিয়ে তৈরি করা হয়। ফোনটি সুন্দর করতে এতে সোনা ও ক্রিস্টাল ব্যবহার করা হয়েছে।

[USA Student Visa] যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাস সীমিত আকারে শিক্ষার্থীদের ভিসা আবেদন গ্রহণ করা শুরু করছে।



1 Comments

Post a Comment

Previous Post Next Post