Facebook SDK

 


আজকের দিনে দাঁড়িয়ে একটি ফোনের সাহায্যে অনেক কিছু করা যায়। এই কারণেই ফোনে 128 জিবি দেওয়া সত্ত্বেও খুব তাড়াতাড়ি মেমরি ভরে যায়। একটি ফোনে ফোটো, ভিডিও থেকে শুরু করে গেম, পার্সোনাল ডকুমেন্টসহ বিভিন্ন ধরনের জিনিস থাকে। অনেক সময় এমন হয় যে অপ্রয়োজনীয় ডেটা ডিলিট করতে গিয়ে আমরা গুরুত্বপূর্ণ ফাইল ডিলিট করে ফেলি। আর তখনই সমস্যা শুরু। কোনো ফাইল একবার ডিলিট করে দিলে সেটি রিকভার করা যথেষ্ট কষ্টসাধ্য। কয়েক বছর আগেও ডিলিট হয়ে যাওয়া ফোটো মোবাইল থেকে রিকভার করা প্রায় অসম্ভব ছিল। কিন্তু বর্তমানে কিছু টুলস ও কৌশলের সাহায্যে এই কাজ কিছুটা সহজ হয়ে গেছে।


রিসাইকেল বিন চেক করুন: 

রিসাইকেল বিন ফিচারের সূচনা হয় কম্পিউটার থেকে। আগেকার অ্যান্ড্রয়েড ফোনে এই ফিচারের নামগন্ধ ছিল না। কিন্তু এখন নতুন অ্যান্ড্রয়েড ফোনে বাই ডিফল্ট রিসাইকেল বিন থাকে। কোনো ফোটো শুরুতে ফোনের গ‍্যালারিতে থাকে তবে ডিলিট করার পর সেটি রিসাইকেল বিনে চলে যায়। তাই কয়েক দিনের মধ্যে যদি আপনি কোনো ফোটো ডিলিট করে থাকেন তবে রিসাইকেল বিন চেক করতে পারেন। এখানেই ডিলিট করা ফোটো পেয়ে যাবেন।


গুগল ফোটোজ:

প্রতিটি অ্যান্ড্রয়েড ফোনে ফোটো ব‍্যাক‌আপের জন্য গুগল ফোটোজ থাকে। আপনি যদি ব‍্যাক‌আপ ফিচার অন করে রাখেন তবে ইন্টারনেটের সঙ্গে কানেক্ট হয়ে আপনার ফোন নিজে থেকেই ফোটো ব‍্যাক‌আপ করে রাখবে। ফোন থেকে কোনো ফোটো ডিলিট হয়ে যায় তবে সেটি গুগল ফোটোজে পাওয়া যাবে। সবচেয়ে বড় কথা ফোন এবং কম্পিউটার উভয় প্ল‍্যাটফর্মে গুগল ফোটোজ ব‍্যবহার করা যায়। 

 ফোনের জন্য সবচেয়ে বেস্ট ডিস্ক ডিগারঃ



আপনার ফোটো বা ভিডিও ফোন মেমরি থেকে ডিলিট হয়ে থাকে তবে DiskDigger Photo Recovery সবচেয়ে বেস্ট অ্যাপ। সবচেয়ে বড় কথা এই অ্যাপটি ফ্রিতে পাওয়া যায় এবং বিনামূল্যে হ‌ওয়া সত্ত্বেও এটি যথেষ্ট কার্যকর। এটি আপনার ফোনে ইনস্টল করে রান করুন। এই অ্যাপটি ডিলিট হয়ে যাওয়া ফোটো ও ভিডিও রিকভার করতে সক্ষম। এটির স্ক‍্যান করা হয়ে গেলে ফোটো ও ভিডিওর লিস্ট স্ক্রিনে শো করবে। আপনাকে এবার সিলেক্ট করে রিকভার করতে হবে। এরপর সেইসব ডিলিট হয়ে যাওয়া ফোটো ও ভিডিওগুলি আবার ফোনে ফিরে আসবে।


Updated 

এটি ছাড়াও Android ডাটা রিকোভারির জন্য Dempster  বেটার হবে আর playstore এ এর রেটিং ও অনেক বেশি।

Download - Google Play/download/button





Post a Comment

Previous Post Next Post