Facebook SDK

 বিকাশ নামটি এখন আমাদের জীবন চলার পথে এর গুরুত্ব অনেক। যার মাধ্যমে দেশের এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে দ্রুত ও কয়েক সেকেন্ড মধ্যে টাকা লেনদেন করা যাই।



অনেক সময় বিভিন্ন সমস্যার কারনে বিকাশ একাউন্টটি বন্ধ করতে হয় বা অনেকের ইচ্ছা হয় যে বাবা,মা NID কার্ড দিয়ে খুলা একাউন্ট বন্ধ করে নিজের NID কার্ড দিয়ে একাউন্ট খুলার বা বর্তমান একাউন্টটি বন্ধ করে অন্য মোবাইল নাম্বারে একই ফটো আইডি ব্যবহার করে নতুন একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করার এই সব কিছু বিষয় নিয়ে আজকের এই পোস্ট।

একটা কথা মনে রাখবেন বিকাশে মালিকানা পরিবর্তন করা সম্ভব নয়।


  • আরো পড়ুন  :

বিকাশ একাউন্ট বন্ধ করার নিয়ম।

তো বিস্তারিত শুরু করা যাক।

বর্তমান বিকাশ একাউন্টি বন্ধ করুন

আপনার বর্তমান একাউন্টি বন্ধ করার জন্য আপনার বিকাশ একাউন্টের ব্যালেন্সটি শূণ্য করতে হবে। বিকাশ গ্রাহক সেবা কেন্দ্র ও গ্রাহক সেবায় যেতে হবে এবং সাথে করে আপনার বিকাশ একাউন্ট নাম্বারের হ্যান্ডসেট, আপনার মূল ফটো আইডি (জাতীয় পরিচয়পত্র বা স্মার্ট কার্ড) এবং এর একটি ফটোকপি নিয়ে বিকাশ গ্রাহক সেবা কেন্দ্র অথবা গ্রাহক সেবা নিয়ে যেতে হবে। একাউন্ট খুলার সময় যে সকল তথ্য দিয়েছেন এবং বর্তমান তথ্য গুলার সাথে মিল থাকে তা হলে আপনার বিকাশ একাউন্ট টি বন্ধ করে দিবে।

মনে রাখবেন এই জাতীয় পরিচয়পত্র বা স্মার্ট কার্ড দিয়ে যে নাম্বারে বিকাশ একাউন্ট খুলছিলেন সে নাম্বারে এই জাতীয় পরিচয়পত্র বা স্মার্ট কার্ড দিয়ে আর একাউন্ট খুলতে পারবেন না কিন্তু অন্য জাতীয় পরিচয়পত্র বা স্মার্ট কার্ড দিয়ে এই নাম্বারে একাউন্ট খুলতে পারবেন এবং এই জাতীয় পরিচয়পত্র বা স্মার্ট কার্ড দিয়ে অন্য নাম্বারে একাউন্ট খুলা যাবে।

বাবা,মা NID কার্ড দিয়ে খুলা একাউন্ট বন্ধ করে নিজের NID কার্ড দিয়ে একাউন্ট খুলুন।

এইক্ষেত্রেও একই নিয়ম যার জাতীয় পরিচয়পত্র বা স্মার্ট কার্ড দিয়ে একাউন্ট খুলা ছিলো তাকে সাথে করে বিকাশ গ্রাহক সেবা কেন্দ্র ও গ্রাহক সেবায় যেতে হবে এবং জাতীয় পরিচয়পত্র বা স্মার্ট কার্ডও নিয়ে যেতে হবে।

  • আরো পড়ুন : 

Bkash pin reset with USSD coad ।। বিকাশ পিন রিসেট করে নিন সহজ ২টি ধাপে কোড ডায়াল করে।


একাউন্ট খুলার সময় যে সকল তথ্য দিয়েছিলো এবং বর্তমান তথ্য গুলার সাথে মিল থাকে তা হলে আপনার বাবা,মা NID কার্ড দিয়ে খুলা একাউন্ট বন্ধ করে দিয়ে আপনার NID কার্ড দিয়ে একাউন্ট খুলে দিবে।

আপনি ইচ্ছা করলে একাউন্ট টি বন্ধ করে বাসায় এসেও নিজের ফোন দিয়েও একাউন্ট খুলতে পারবেন।



লেনদেনের সীমা

লেনদেনের প্রকার

সর্বোচ্চ সংখ্যক লেনদেন

প্রতি লেনদেনে

সর্বোচ্চ পরিমাণ

দিনে

মাসে

সর্বনিম্ন (টাকা)

সর্বোচ্চ (টাকা)

দিনে (টাকা)

মাসে (টাকা)

এজেন্ট থেকে ক্যাশ ইন 

২৫

৫০

৩০,০০০

৩০,০০০

২০০,০০০

ব্যাংক থেকে বিকাশ ডিপোজিট​
কার্ড টু বিকাশ

সেন্ড মানি ও ট্রান্সফার মানি

৫০

১০০

১০

২৫,০০০

২৫,০০০

২০০,০০০

মোবাইল রিচার্জ​

৫০

১৫০০

১০

১,০০০*

১০,০০০

১০০,০০০

পেমেন্ট

প্রযোজ্য নয়

প্রযোজ্য নয়

প্রযোজ্য নয়

প্রযোজ্য নয়

প্রযোজ্য নয়

এজেন্ট থেকে ক্যাশ আউট

২০

৫০

২৫,০০০

২৫,০০০

১৫০,০০০

এটিএম থেকে ক্যাশ আউট (কিউ-ক্যাশ)

২,০০০

২৫,০০০

এটিএম থেকে ক্যাশ আউট (ব্র্যাক ব্যাংক)২,৫০০২৫,০০০

ইন্টারন্যাশনাল রেমিটেন্স

১০

৫০

৫০

১,২৫,০০০

(২% সরকারি প্রণোদনাসহ)

১,২৫,০০০

(২% সরকারি প্রণোদনাসহ)

৪,৫০,০০০

(২% সরকারি প্রণোদনাসহ)

ব্যাংক ট্রান্সফার (আইব্যাংকিং)

বর্তমান ক্যাশ ইন লিমিট প্রযোজ্য। ক্যাশ ইন লিমিটে যেকোনো প্রকার ব্যাংকিং, কার্ড ট্রান্সফার এবং এজেন্ট থেকে ক্যাশ ইন অন্তর্ভুক্ত অর্থাৎ এজেন্ট থেকে ক্যাশ ইন এবং ব্যাংক ও কার্ড থেকে প্রাপ্তিতে একই লিমিট প্রযোজ্য।

 

বিঃদ্রঃ

  • একজন বিকাশ একাউন্ট হোল্ডার তার বিকাশ একাউন্ট থেকে প্রতিদিন সর্বোচ্চ ২৫,০০০ টাকা এবং প্রতি মাসে সর্বোচ্চ ১৫০,০০০ টাকা পর্যন্ত টাকা তুলতে পারবেন (এজেন্ট এবং এটিএম থেকে সম্মিলিতভাবে)
  • আপনি ব্র্যাক ব্যাংক লিমিটেড এটিএম ক্যাশ আউট সার্ভিস ব্যবহারের ক্ষেত্রে আপনার বিকাশ একাউন্ট থেকে একটি একক লেনদেনে ২,৫০০ টাকা শুরু করে সর্বোচ্চ ১০,০০০ টাকা পর্যন্ত ক্যাশ আউট করতে পারবেন।
  • একজন বিকাশ একাউন্ট হোল্ডার যে কোন মুহূর্তে তার একাউন্টে-এ সর্বোচ্চ ৩০০,০০০ টাকা রাখতে পারবেন।
  • একটি বিকাশ একাউন্ট থেকে যেকোনো সময়ে একবারে প্রিপেইড নাম্বারে সর্বোচ্চ *১,০০০ টাকা এবং পোস্টপেইড নম্বরে সর্বোচ্চ *৫,০০০ টাকা মোবাইল রিচার্জ করতে পারবেন।
  • রেমিটেন্স-এর ক্ষেত্রে বিদেশ থেকে একজন ব্যক্তি বাংলাদেশে প্রতিদিন ১,২২,৫০০ টাকা পর্যন্ত এবং মাসে সর্বোচ্চ ৪,৪১,০০০ টাকা পাঠাতে পারবেন। প্রেরিত অর্থের সাথে ২% সরকারী প্রণোদনা যুক্ত হবে।

Post a Comment

Previous Post Next Post